D Bapi Biriyani। ডি বাপি বিরিয়ানি মালিককে লক্ষ টাকা দেওয়ার হুমকি

Spread the love

ডি বাপি বিরিয়ানির(D Bapi Biriyani)। বাংলার বিরিয়ানির(Biriyani) জগতে একেবারে পরিচিত নাম। ব্যারাকপুর, মধ্যমগ্রাম সহ উত্তর ২৪ পরগনার বিভিন্ন এলাকায় বিরিয়ানিপ্রেমীর এক ডাকে চেনেন এই আউটলেটটিকে। অল্প দিনের মধ্যে বেশ পসার করে ফেলেছে এই ডি বাপি। আর সেই বিরিয়ানির দোকানের মালিককে নানাভাবে হুমকি(Threat) দেওয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ।

গত জানুয়ারি মাসে তোলা না দেওয়ায় এক ব্যবসায়ীকে ভোজালি দিয়ে কোপানোর অভিযোগ উঠেছিল একদল যুবকের বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছিল বারাকপুরে সদর বাজার এলাকায়। এই ঘটনায় কয়েকজন যুবকের বিরুদ্ধে অভিযোগ জানিয়েছিলেন আক্রান্ত ব্যবসায়ী গৌরব রায়। অভিযুক্ত যুবকের নাম সোনু সাহা। ওই যুবক আরও কয়েকজনকে সঙ্গে নিয়ে এসে ব্যবসায়ীকে খুনের চেষ্টা করেছিল বলে অভিযোগ।

এবার ডি বাপির মালিককে তোলা চেয়ে ফোন।

তিনি জানিয়েছেন, সোমবার রাতে আমায় ফলো করছিল। গাড়ি থেকে বের হওয়ার সাহস পাইনি। তিন, চারটে পাঁচ নম্বর থেকে ফোন করা হয়েছে। ২০ লাখ টাকা চেয়েছে। বউ, বাচ্চা, বাড়ির লোকজন সব কান্নাকাটি করছে। প্রচন্ড আতঙ্কের মধ্যে দিন কাটছে। কারোর জীবনের আর দাম নেই। ওরা টাকার জন্য সব পারে। গুলি করে দেবে।

এর আগে ২০২২ সালের ১৬ মে ব্যারাকপুর ওয়ারলেস মোড় সংলগ্ন বিরিয়ানির দোকানের সামনে দুষ্কৃতীরা গুলি চালাতে শুরু করে। পরপর ৭ রাউন্ড গুলি চালায় তারা। সেই ঘটনায় দোকানের এক কর্মী জখম হয়েছিল। এরপর পুলিশ এলাকার সিসি ক্যামেরার ফুটেজ খতিয়ে দেখে। এবারও পুলিশ এলাকার সিসি ক্যামেরার ফুটেজ খতিয়ে দেখা হচ্ছে। কিন্তু এবার প্রশ্ন দুষ্কৃতীরা কি ধরা পড়বে।

এদিকে একাধিক নম্বর থেকে তোলা চেয়ে ফোন তোলা হচ্ছে বলে তিনি দাবি করেছেন। এদিকে এই ফোন পাওয়ার জেরে স্বাভাবিকভাবেই তার মধ্যে আতঙ্ক ছড়াচ্ছে। তবে এবার প্রশ্ন ফোন কি বাংলা থেকেই আসছে নাকি ভিন রাজ্য থেকে আসছে? তবে এবারই প্রথম নয়।

মালিকের দাবি, একাধিক নম্বর থেকে তাকে তোলা চেয়ে হুমকি দেওয়া হচ্ছে। এর জেরে তিনি প্রবল আতঙ্কিত। সোমবার রাতে তিনি মধ্য়মগ্রামের দোকান থেকে ফিরছিলেন। সেই সময় দুই বাইক আরোহী তার গাড়ির পিছু নেয়। সেই সময় গাড়ি থেকে নামতে চাননি তিনি। এরপর অনির্বান দ্রুত কর্তব্যরত পুলিশের কাছে সহায়তা চান। এরপরই বাইক আরোহীরা দ্রুত এলাকা ছেড়ে চলে যায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *