Guyana Pitch Report। ভারত-ইংল্যান্ড T20 WC সেমিফাইনালে ২২ গজের চরিত্র কেমন হবে?

Spread the love

দ্বিতীয় সেমিফাইনালে(Semifinal) মুখোমুখি হবে ভারত(India) ও ইংল্যান্ড(England)।গায়ানার প্রভিডেন্স স্টেডিয়ামে আজ ভারতীয় সময় সন্ধ্যায় টি২০ বিশ্বকাপের দ্বিতীয় সেমিফাইনালে মুখোমুখি হবে ভারত ও ইংল্যান্ড। এই ম্যাচ ঘিরে অবশ্য রহস্যের অন্ত নেই। এক তো গায়ানার আবহাওয়া নিয়ে জল্পনা। আর দ্বিতীয়ত, প্রভিডেন্স স্টেডিয়ামের পিচের চরিত্র নিয়ে ধোঁয়াশা। এর আগে এই মাঠে টি২০ বিশ্বকাপের যতগুলি ম্যাচ হয়েছে, তা খুবই লো-স্কোরিং হয়েছে। এর আগে রাতে এই মাঠেই খেলেছিল আফগানিস্তান এবং নিউজিল্যান্ড(Newzealand)।

সেই ম্যাচে প্রথম ব্যাট করে কিউয়িদের হারিয়েছিলেন রশিদরা। সেই ম্যাচে বেশ কিছু বল নীচিু থেকেছিল। এদিকে আফগান তারকা ব্যাটার গুরবাজও দাবি করেন, এই পিচে খেলা বেশ চ্যালেঞ্জিং। এদিকে এই মাঠে বাউন্ডারি বেশ দূরে – ৭০ থেকে ৮০ মিটার।

এদিকে বৃষ্টির ভ্রূকুটি থাকা ম্যাচে সাধারণ কোনও দল টসে জিতে বল করার সিদ্ধান্তই নিয়ে থাকে। তবে গায়ানার পিচে প্রথমে ব্যাট করে বড় রান করলে পরের দিকে পিচ কিছুটা মন্থর গতির হয়ে যেতে পারে। সেই ক্ষেত্রে তখন রান করা মুশকিল হতে পারে। তবে এই গোটা বিষয়টাই নির্ভর করছে আকাশের ওপর। বৃষ্টি হলে পিচের চরিত্রেও কিছুটা বদল আসতে পারে। এদিকে সকালের দিকে আবহাওয়ার(weather) ফলে বল কিছুটা সুইং করলেও করতে পারে। সেই ক্ষেত্রে প্রথমে ব্যাট করলেও শুরুর দিকে সামলে খেলতে হতে পরে ব্যাটারদের।

গত পাঁচ বছরে গায়ানায় যত টি২০ ম্যাচ হয়েছে, তার মধ্যে প্রথমে টসে জেলা দল ৫৪ শতাংশ ক্ষেত্রে বল করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। ভারত শেষবার এই মাঠে ২০২৩ সালের অগস্টে খেলেছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে। সেই ম্যাচে ভারত ১৩ বল বাকি থাকতে ১৬০ রান তাড়া করেছিল। এদিকে চলতি বিশ্বকাপে এই মাঠে পওয়ার প্লেতে গড় রানরেট থেকেছে ৬.৪। মাঝের ওভারগুলিতে রানরেট থেকেছে ৫.৫। এবং শেষের দিকের ওভারগুলিতে গড় রানরেট কিছুটা উঠে ৭.৬ হয়েছে। এই পিচে ভারতীয় স্পিনাররা বেশ মদত পেতে পারেন বলে আশা করা হচ্ছে।

তবে এরই সঙ্গে ইংল্যান্ডের আদিল রশিদ, মইন আলি, লিয়াম লিভিংস্টোনরাও খেলা ঘোরাতে পারেন। এদিকে ভারত হয়ত চার স্পিনার নিয়ে এই মাঠে নামবে না। যদিও এই নিয়ে প্রশ্ন করা হলে গতকাল প্রাকম্যাচ সংবাদ সম্মেলনে রোহিত শর্মা বলেন, পিচ দেখব। যদি প্রয়োজন পড়ে, তাহলে চার স্পিনার খেলানো হতে পারে। তবে অনেক দলই পাঁচ পেসার নিয়ে এসেছে। তাই বলে কি তারা প্রতি ম্যাচে পাঁচ পেসার খেলিয়েছে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *