Mamata Shankar: কপালে পিণ্ডের মতো আকৃতি বস্তুটি কি আসলে টিউমার?

Spread the love

শিল্পী হিসাবে মমতা শঙ্করের পরিচিতি দেশ ছাড়িয়ে বিদেশের মাটিতেও রয়েছে।নৃত্যশিল্পী, অভিনেত্রী হিসাবে তিনি কিংবদন্তি। যেটা হল মমতা শঙ্করের কপালে একটা মাংস পিণ্ডের মতো গোলাকার একটা বস্তু। যা বহু বছর আগে তাঁর মুখে ছিল না। যেটা হয়ত অনেকেই খেয়াল করেছেন,  যা দেখে অনেকের মনেই হয়ত প্রশ্ন জেগেছে এটা কি টিউমার। কেন তিনি এটার চিকিৎসা করাচ্ছেন না?সংস্কৃতিপ্রেমী মানুষ এই নামটির সঙ্গে বেশ ভালোভাবেই পরিচিত। তবে সাম্প্রতিক সময়ে অনেকেই মমতা শঙ্করের চেহারায় একটা বদল দেখেছেন। 

সম্প্রতি এবিষয়েই টিভি৯-এর কাছে এবিষয়ে মুখ খুলেছেন কিংবদন্তি শিল্পী মমতা শঙ্কর। তিনি জানিয়েছেন, এটায় ভয়ের কিছু নেই। অনেক বছর ধরেই তাঁর কপালে ফুসকুড়ির মতো একটা ছিল, যেটা ক্রমাগত বড় হয়ে পিণ্ডের মতো দেখতে হয়েছে। ধীরে ধীরে এটা বড় আকৃতি ধারণ করলেও এটা টিউমার নয় বলেই জানিয়েছেন মমতা শঙ্কর। এটায় ভয়ের কিছু নেই, তাই এনিয়ে অনুরাগীদের চিন্তা করতে মানা করেছেন শিল্পী।

মমতা শঙ্করের কথায়, ‘ওটা আসলে গজিয়ে ওঠা বাড়িতে হাড়। ওটা কোনও মাংস পিণ্ডও নয়। বিজ্ঞানের ভাষায় এটাকে বলে অস্ট্রিওমা। মেকআপ দিয়েও ওটাকে ঢেকে রাখা যায় না। অনেকদিন থেকেই ছিল। ক্রমাগত বড় হচ্ছে। তবে আবারও বলছি ওটা টিউমার নয়। তাই ভয়ের কিছু নেই।’প্রসঙ্গত, কাজের ক্ষেত্র শেষবার ‘প্রধান’, ‘প্রজাপতি’ এবং ‘পালান’-এর মতো ছবিতে দেখা গিয়েছে মমতা শঙ্করকে।

তবে অভিনেত্রী কেন এটার জন্য চিকিৎসকের দ্বারস্থ হচ্ছেন না? এবিষয়ে তিনি মমতা শঙ্কর জানান। চিকিৎসকরা তাঁকে জানিয়েছেন, কসমেটিক সার্জারি করে এই হাড়কে নির্মূল করা যয়া। চিকিৎসকরা তাঁকে সেকথা বলেওছেন। তবে তিনি সেই কসমেটিক সার্জারির মতো সময় করে উঠতে পারছেন না। সময় পেলেই করিয়ে নেবেন বলেও জানান শিল্পী।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *