Passport: পাসপোর্ট গ্রাহকদের জন্য আনন্দ সংবাদ! বড় ঘোষণা

Spread the love

খুব তাড়াতাড়ি পাবেন পাসপোর্ট(Passport)। এমনটাই ঘোষণা বিদেশমন্ত্রীর। সোমবার বিদেশমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর(S Jaysankar) জানিয়েছেন, পাসপোর্ট সরবরাহের ক্ষেত্রে সময় কিছুটা কমানোর জন্য পাসপোর্ট আবেদনকারীদের পুলিশ ভেরিফিকেশনের সময় হ্রাস করার ক্ষেত্রে বিদেশমন্ত্রক রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলির পুলিশ বাহিনীর সঙ্গে একযোগে কাজ করছে। উন্নত পাসপোর্ট পরিষেবা দিতে মন্ত্রক ৪৪০টি পোস্ট অফিস পাসপোর্ট সেবা কেন্দ্র চালু করেছে। সারা দেশে ৯৩টি পাসপোর্ট সেবা কেন্দ্র, ৫৩৩টি পাসপোর্ট প্রক্রিয়াকরণ কেন্দ্র এবং ৩৭টি আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস রয়েছে। মন্ত্রক বিদেশে ১৮৭ টি ভারতীয় মিশনে পাসপোর্ট জারি করার ব্যবস্থাকেও সংহত করেছে।আন্তর্জাতিক বাণিজ্য ও বিনিয়োগের সুবিধার্থে এবং বিশ্বজুড়ে গতিশীলতা বাড়ানোর মাধ্যমে পাসপোর্টগুলি দেশের উন্নয়নে উল্লেখযোগ্যভাবে প্রভাব ফেলবে তা নিশ্চিত করতে তার মন্ত্রণালয় প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।

জয়শঙ্কর(S Jaysankar) বলেন, ‘পাসপোর্ট(Passport) সরবরাহের ইকোসিস্টেমকে আরও উন্নত করতে, মন্ত্রক পুলিশ ভেরিফিকেশনের জন্য সময় হ্রাস করার জন্য রাজ্য / কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল পুলিশের সাথে ক্রমাগত কাজ করছে।২৫টি রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের ৯ হাজার থানায় ‘এমপাসপোর্ট পুলিশ অ্যাপ’ চালু করা হয়েছে। তিনি আরও বলেন, ‘কাগজবিহীন ডকুমেন্টেশন প্রক্রিয়া সহজতর করতে পাসপোর্ট সেবা সিস্টেমটি ডিজি লকার সিস্টেমের সাথে সফলভাবে সংহত করা হয়েছে।

তিনি বলেন, পাসপোর্ট(Passport) ভারতীয় নাগরিকদের সরিয়ে নেওয়া ও সহায়তার মতো সংকট ব্যবস্থাপনায়ও সহায়তা করে।আন্তর্জাতিক বাণিজ্য ও বিনিয়োগের সুবিধার্থে, পর্যটন বিকাশ, বিশ্বজুড়ে গতিশীলতা বৃদ্ধি, শিক্ষা ও দক্ষতা উন্নয়ন, কূটনৈতিক সম্পর্ক, সুরক্ষা ও নিয়ন্ত্রণ এবং আইনি পরিচয়ের মাধ্যমে পাসপোর্টগুলি দেশের উন্নয়নে উল্লেখযোগ্যভাবে প্রভাব ফেলবে তা নিশ্চিত করতে সরকার প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।কেন্দ্রীয় পাসপোর্ট সংস্থার সঙ্গে বিদেশ মন্ত্রক নাগরিকদের সময়োপযোগী, নির্ভরযোগ্য, অ্যাক্সেসযোগ্য, স্বচ্ছ এবং দক্ষ পদ্ধতিতে পাসপোর্ট পরিষেবা সরবরাহ করতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। মন্ত্রণালয় ২০২৩ সালে ১৬.৫ মিলিয়ন পাসপোর্ট সম্পর্কিত পরিষেবা প্রদান করেছে এবং একই সময়ে পাসপোর্ট এবং অন্যান্য সম্পর্কিত পরিষেবাগুলিতে ১৫% বৃদ্ধি পেয়েছে।

জানা গেছে, ২০২৩ সালে পাসপোর্ট আবেদনের মাসিক জমা দেওয়ার সংখ্যা ১৪ লাখ ছাড়িয়েছে। পাসপোর্ট পাওয়ার ক্ষেত্রে সময় যাতে কম লাগে সেকারণেই এই উদ্যোগ। এই ব্যবস্থার মাধ্যমে পাসপোর্ট পাওয়ার ব্যবস্থাগুলি আরও সহজতর করা হচ্ছে। সেই সঙ্গেই পুলিশ ভেরিফিকেশনের প্রক্রিয়াগুলিকে আরও উন্নততর করার চেষ্টা করা হচ্ছে। এর জেরে পাসপোর্ট পাওয়ার সময় অনেকটাই কমতে পারে। জানা গিয়েছে, পুলিশ ভেরিফিকেশনের জন্য গড় সময় লাগে মোটামুটি ১৪দিন। তবে যে সমস্ত রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে এমপাসপোর্ট পুলিশ অ্যাপ চালু হয়েছে সেখানে পুলিশ ভেরিফিকেশনের জন্য পাঁচ দিনেরও কম সময় লাগে।বিগত দিনে জয়শঙ্কর জানিয়েছিলেন পুলিশ ভেরিফিকেশন ছাড়া সাধারণ পাসপোর্টের জন্য সাত থেকে ১০দিন সময় লাগে। আর তৎকাল পাসপোর্টের জন্য ১-৩ দিন সময় লাগে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *