Robotic Elephant: মন্দিরে রোবট হাতি উপহার দিলেন আদা শর্মা

Spread the love

লাইফ সাইজ যান্ত্রিক হাতি দান করল পেটা ইন্ডিয়া। তিরুবনন্তপুরমের পৌরনামিকাভু মন্দিরে একটি লাইফ সাইজ যান্ত্রিক হাতি দান করল পেটা ইন্ডিয়া। এটি সমস্ত মন্দিরের অনুষ্ঠানে ব্যবহৃত হবে, আসল হাতিগুলি তাদের পরিবারের সাথে বনে থাকতে পারবে়।’দ্য কেরালা স্টোরি’-তে অভিনয়ের জন্য বিখ্যাত অভিনেতা আদাহ শর্মা পেটার সঙ্গে হাত মিলিয়ে মন্দিরে বালাধাসান নামে একটি যান্ত্রিক হাতি দান করেছেন। শনিবার মন্দিরে ঐতিহ্যবাহী অনুষ্ঠানের মাধ্যমে একটি উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছিল বলে জানিয়েছে প্রাণী অধিকার সংস্থা।

পেটা ইন্ডিয়া জানিয়েছে, যান্ত্রিক হাতি বলধাসান মন্দিরের সমস্ত অনুষ্ঠানে পারফর্ম করবে, যাতে আসল হাতিরা জঙ্গলের বাড়িতে তাদের পরিবারের সাথে থাকতে পারে।একেবারে অভিনব উদ্যোগ। এই হাতি মন্দিরের সমস্ত কার্যক্রমে অংশ নেবে। আর জ্যান্ত হাতিরা সব যাবে বনে। সেখানে তাদের পরিবারের সঙ্গে থাকবে তারা। 

‘প্রযুক্তিগত অগ্রগতি আমাদের গভীর সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য এবং ঐতিহ্য সংরক্ষণ করার অনুমতি দেয় এবং বিপন্ন হাতিদের জঙ্গলে তাদের পরিবারের সাথে বসবাস করার অনুমতি দেয়। পেটা ইন্ডিয়ার সাথে এই যান্ত্রিক হাতিটি দান করতে পেরে আমি আনন্দিত, অনুগামীদের এমনভাবে পবিত্র আচারে অংশ নিতে সক্ষম করে যা মানুষের পক্ষে নিরাপদ এবং প্রাণীদের প্রতি শ্রদ্ধাশীল।’ জানিয়েছেন আদা শর্মা। পুর্নামিকাভু মন্দির মুখ্য কার্যদর্শী এমএস ভুবনচন্দ্রন বলেছেন, ‘এই শুভ পূর্ণিমার দিনে, আমরা সমস্ত ঐশ্বরিক প্রাণীদের সম্মানে যান্ত্রিক হাতি বলদাসনকে আমাদের সাথে পেয়ে আনন্দিত, যারা তাদের প্রিয়জনদের সাথে পৃথিবীতে অবাধে এবং সুরক্ষিত ঘুরে বেড়াতে আগ্রহী।

পেটা ইন্ডিয়া অন্যান্য জায়গাগুলিতে জীবিত হাতিদের বিরুদ্ধে নিষ্ঠুরতা রোধ করতে যান্ত্রিক হাতি দত্তক নিতে উৎসাহ দিচ্ছে।  কারণ জীবন্ত হাতিগুলিকে প্রায়শই কঠোর প্রশিক্ষণের মধ্য়ে থাকতে হয়।বন্দী অবস্থায় তাদের দিনের পর দিন থাকতে হয়।তিনি বলেন, ভারতে বন্দি বহু হাতি… ঘণ্টার পর ঘণ্টা কংক্রিটের ওপর শিকল দিয়ে বেঁধে রাখার কারণে অনেকের পায়ে চরম যন্ত্রণাদায়ক অসুস্থতা এবং পায়ে ক্ষত রয়েছে, এবং বেশিরভাগই পর্যাপ্ত খাবার, জল বা পশু চিকিৎসা সেবা পায় না – প্রাকৃতিক জীবনের ছিটেফোঁটাও তো দূরের কথা।পেটা ইন্ডিয়া বন্দী হাতিদের অভয়ারণ্যে অবসর নেওয়ার পক্ষে রয়েছে যেখানে তারা অবাধে থাকতে পারে এবং বন্দীদশার ট্রমা থেকে নিজেদের পুনরুদ্ধার করতে পারে। অনন্য এবং বড় মূর্তির জন্য পরিচিত পোর্নামিকাভু মন্দিরটি এই সহানুভূতিশীল পরিবর্তনকে মেনে নিয়েছে।

ইতিমধ্যেই তিনটি লাইফ সাইজ যান্ত্রিক হাতি ব্যবহার করা হচ্ছে। তাঁদের মধ্যে রয়েছেন ত্রিশূরের ইরিঞ্জাদাপিল্লি শ্রীকৃষ্ণ মন্দিরের ইরিঞ্জাদাপিল্লি রমন, কোচির থ্রিক্কাইল মহাদেব মন্দিরের মহাদেবন এবং মহীশূরের জগদ্গুরু শ্রী বীরসিংহাসন মহাসংস্থান মঠের শিব। পেটা ইন্ডিয়ার বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ভয়েসেস ফর এশিয়ান এলিফ্যান্টসের প্রতিষ্ঠাতা নির্বাহী পরিচালক গুডালুরের শ্রী শঙ্করন মন্দিরে চতুর্থ রোবোটিক হাতি, শঙ্কর হরিহরণ দান করেছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *