WI vs SA: দশ বছর বাদে শেষ চারে প্রোটিয়ারা

Spread the love

২০২৪ সালে অনুষ্ঠিত হচ্ছে আইসিসি টি টোয়েন্টি বিশ্বকাপের নবম সংস্করণ। পরপর আটটি সংস্করণে একটি প্রবণতা দেখা গিয়েছিল, যা এবারও অব্যাহত রইল।আইসিসি টি টোয়েন্টি বিশ্বকাপের প্রথম সংস্করণটি ২০০৭ সালে খেলা হয়েছিল।আমেরিকার পরে, ওয়েস্ট ইন্ডিজও আইসিসি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ ২০২৪-এর সেমিফাইনালের রেস থেকে ছিটকে গিয়েছে। আজ পর্যন্ত কোনও স্বাগতিক দল টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের শিরোপা জিততে পারেনি।

৫০ ওভারে বিশ্বকাপেও এমনটা দেখা গিয়েছিল

এখানে আরেকটি মজার তথ্য রয়েছে এবং তা হল ক্রিকেট বিশ্বকাপের (৫০ ওভারের বিশ্বকাপ) প্রথম নয়টি সংস্করণে কোনও হোম দল শিরোপা জিততে পারেনি এবং তারপরে ভারত দশম সংস্করণে এই সিরিজটি ভেঙে দেয়। এরপর ধারাবাহিকভাবে তিন মরশুম বিশ্বকাপের শিরোপা দখল করে ঘরের দল।

২০০৭ সাল থেকে টি টোয়েন্টি বিশ্বকাপে এমনটা হয়ে চলেছে

আইসিসি টি টোয়েন্টি বিশ্বকাপের প্রথম সংস্করণ ২০০৭ সালে খেলা হয়েছিল, যখন এটি দক্ষিণ আফ্রিকার দ্বারা আয়োজিত হয়েছিল এবং ভারত সেবারে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল। এর পরে, ২০০৯ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আয়োজক ছিল ইংল্যান্ড এবং শিরোপা জিতেছিল পাকিস্তান। ২০১০ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ ওয়েস্ট ইন্ডিজে খেলা হয়েছিল এবং শিরোপা জিতেছিল ইংল্যান্ড। ২০১২ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আয়োজক ছিল শ্রীলঙ্কা এবং শিরোপা জিতেছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ। এরপর ২০১৪ সালের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ আয়োজনের দায়িত্ব পায় বাংলাদেশ এবং শিরোপা জিতেছিল শ্রীলঙ্কা। ২০১৬ টি ২০ বিশ্বকাপের আয়োজক ছিল ভারত এবং শিরোপা জিতেছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

২০১১ সালে ভেঙেছিল সেই প্রথা

২০২১ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আয়োজক ছিল বোর্ড অফ কন্ট্রোল ফর ক্রিকেট ইন ইন্ডিয়া (BCCI), কিন্তু ম্যাচগুলি সংযুক্ত আরব আমির শাহিতে এবং ওমানে খেলা হয়েছিল। সেবার টুর্নামেন্ট জিতেছিল অস্ট্রেলিয়া। এরপর ২০২২ সালের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ অস্ট্রেলিয়ায় অনুষ্ঠিত হলেও শিরোপা জিতেছিল ইংল্যান্ড। যদি আমরা ওয়ানডে বিশ্বকাপের কথা বলি, ২০১১ সালের আগে কোনও আয়োজক শিরোপা জেতেনি, তবে এর পরে, ২০১১ বিশ্বকাপ ভারত, ২০১৫ বিশ্বকাপ অস্ট্রেলিয়া এবং ২০১৯ বিশ্বকাপ ইংল্যান্ড জিতেছিল। ২০১১ বিশ্বকাপের যৌথ আয়োজক ছিল ভারত, শ্রীলঙ্কা এবং বাংলাদেশ। ২০১৫ বিশ্বকাপের আয়োজক ছিল অস্ট্রেলিয়া এবং নিউজিল্যান্ড। ২০১৯ বিশ্বকাপের আয়োজক ছিল ইংল্যান্ড এবং ওয়েলস।

দশ বছর বাদে শেষ চারে উঠল দক্ষিণ আফ্রিকা –

এর পাশাপাশি এই ম্যাচে আরও একটি নজির দেখা গিয়েছে। ২০১৪ সালের পর প্রথমবারের মতো টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে খেলার যোগ্যতা অর্জন করেছে দক্ষিণ আফ্রিকা। অর্থাৎ দশ বছর পরে আবার শেষ চারের লড়াইয়ে উঠেছে দক্ষিণ আফ্রিকা। সেবারে সেমিফাইনালে ভারতের কাছে ৬ উইকেটে হেরেছিল তারা। প্রোয়িটা দল এবারের বিশ্বকাপ জিততে চাইবে। কারণ এখনও পর্যন্ত তারা বাইশ গজের কোনও বিশ্বকাপ জিততে পারেনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *